শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২৪ অপরাহ্ন

সুনামগঞ্জে বিজিবির গুলিতে কৃষকের মৃত্যু এলাকায় চরম উত্তেজনা, পুলিশ মোতায়ন

সুনামগঞ্জে বিজিবির গুলিতে কৃষকের মৃত্যু এলাকায় চরম উত্তেজনা, পুলিশ মোতায়ন

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ঃ সুনামগঞ্জের বনগাঁও সীমান্তে বিজিবির গুলিতে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। এঘটনার প্রেক্ষিতে এলাকাবাসীর মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। সেজন্য আজ রবিবার (৭ই মার্চ) সকাল থেকে ঘটনাস্থল এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। নিহত কৃষকের নাম হল- মোঃ কামাল মিয়া (৩৫)।

সে জেলার সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার জাহাঙ্গীর ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের আব্দুল আউয়ালের ছেলে। গতকাল শনিবার (৬ মার্চ) সন্ধ্যায় গুলিবৃদ্ধ কামাল মিয়াকে আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর মৃত্যু হয়।

এব্যাপারে এলাকার প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়- সুনামগঞ্জের বনগাঁও সীমান্ত দিয়ে প্রতিদিনের মতো গতকাল শনিবার (৬ মার্চ) দুপুরে ভারত থেকে চোরাচালানীরা গরু পাচাঁর করে নিয়ে যাওয়ার পর টহলে যায় বিজিবি। ওই সময় সীমান্তের ১২১৫ নং পিলার সংলগ্ন স্থানে কৃষক কামাল মিয়া তার গৃহপালিত গরুকে ঘাস খাওয়াচ্ছিল।

তখন বিজিবি সদস্যরা কামাল মিয়ার গরুকে ভারত থেকে পাচাঁর করা গরু দাবী করে ক্যাম্পে নিয়ে যেতে চায়। ওই সময় এলাকার লোকজন ছুটে আসে এবং গরুটি কামাল মিয়ার নিজের পালিত গরু বলে প্রমান দেয়। তারপরও বিজিবি সদস্যরা উত্তেজিত হয়ে অকথ্য ভাষায় লোকজনকে গালিগালাজ শুরু করে। তখন কৃষক কামাল মিয়া বিজিবির সাথে তর্কবিতর্ক করার কারণে গুলি করলে সে গুরুতর আহত হয়।

এঘটনাটি তাৎক্ষনিক ভাবে জানাজানি হওয়ার পর ইসলামপুর গ্রামের লোকজন উত্তেজিত হয়ে দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে বিজিবিকে ধাওয়া করে। ওই সময় গ্রামবাসী হতে রক্ষা পাওয়ার জন্য বিজিবি আবারো গুলি চালায়। তারপর শুরু হয় দুইপক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ।

এঘটনায় বিজিবির এক সদস্য আহত হয়। তাকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর গুলিবৃদ্ধ কামাল মিয়াকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নিয়ে যাওয়ার পর তার মৃত্যু হয়। বর্তমানে কামাল মিয়ার লাশ ময়না তদন্তের জন্য সিলেট রয়েছে বলে জানাগেছে।

এব্যাপারে কামাল মিয়ার বোন আমেনা আক্তার ও আত্মীয় রাজীব আহমদ জানান- কামাল মিয়া পেশায় একজন কৃষক সে চোরাচালানের সাথে জড়িত নয়। কামাল মিয়া তার নিজের পালিত গরুকে ঘাস খাওয়ানোর সময় বিজিবি আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যেতে চায়। ওই সময় কথা কাটাকাটি করার কারণে কামাল মিয়াকে গুলি করে বিজিবি। আমরা এই হত্যাকান্ডের সুবিচার চাই।

সুনামগঞ্জ ২৮ ব্যাটালিয়নের বিজিবি অধিনায়ক মাকসুদুল আলম সাংবাদিকদের জানান- বনগাঁও সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে ২৫-৩০টি গরু এনেছিল চোরাচালানিরা।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবি গরুগুলো আটক করার চেষ্টা করলে চোরাচালানিদের পক্ষ নিয়ে ইসলামপুর গ্রামের লোকজন অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে বিজিবির ওপর হামলা চালায়। এতে বিজিরির ল্যান্স নায়েক থুই হলা মং মারমা আহত হয়। তাই আত্মরক্ষার্থে ২রাউন্ড গুলি চালাতে বাধ্য হয় বিজিবি। এঘটনার প্রেক্ষিতে বিজিবির পক্ষ থেকে চোরাচালানিদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com