বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১০:৫৫ অপরাহ্ন

দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রের মাঠ দখল করে ঠিকাদারের ইট বালুর ব্যবসা

দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্রের মাঠ দখল করে ঠিকাদারের ইট বালুর ব্যবসা

মল্লিক মোঃজামাল,বরগুনা প্রতিনিধি।
বরগুনার তালতলী উপজেলা সদরে চলমান দাখিল পরীক্ষা কেন্দ্র তালতলী ছালেহিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদরাসার মাঠ দখল করে চলছে ঠিকাদারের ইট বালুর ব্যবসা। দীর্ঘদিন যাবৎ এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠ দখল করে ব্যবসা করে আসছেন  প্রভাবশালী ঠিকাদার বাদশা।
সরেজমিনে গিয়ে দেখাগেছে, উপজেলা সদরের তালতলীতে ছালেহিয়া ইসলামিয়া আলিম মাদরাসায় চলছে দাখিল পরীক্ষা। এই পরীক্ষা কেন্দ্রে উপজেলার বিভিন্ন মাদরাসার ৪১৪ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে ।কিন্তুু  মাদরাসার মাঠ দখল করে সড়কের কাজের জন্য নির্মাণ সামগ্রী ইট-বালু রেখে ব্যক্তিগত ব্যবসা চালাচ্ছেন বাদশা নামের এক প্রভাবশালী ঠিকাদার। মাদরাসা মাঠজুরে রাখা ইট, পাথর, বালিসহ নির্মাণ সামগ্রীর ধুলাবালি বাতাসে উড়ছে। পরীক্ষার্থী ও শিক্ষকরা ঠিকভাবে চলাফেরা করতে পারছেন না। অনেকে নাক-মুখে হাত দিয়ে চলাফেরা করছেন। আবার অনেকে মুখে মার্কস ব্যবহার করে কেন্দ্রে আসছেন। এতে চরম দূর্ভোগে পড়েছেন শিক্ষক ও পরীক্ষার্থীরা।
স্থানীয়  অভিযোগ, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মোঃ হারুন অর রশিদের যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবৎ এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠ দখল করে ব্যক্তিগত ব্যবসা চালিয়ে যা”েছন ঠিকাদার বাদশা। এরপর থেকে এক দিনের জন্যও এই মাদরাসায় স্বাভাবিক পাঠদান হয়নি। মাঠে ¯‘প করে রাখা এসব ইট, পাথর, বালুসহ নির্মাণ সামগ্রীর জন্য শিক্ষার্থীদের নানাবিধ সমস্যা হলে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা অধ্যক্ষের কাছে অভিযোগ করেন। তিনি এ অভিযোগ আমলে নেয়নি।
নাম প্রকাশে অনি”ছুক একাধিক শিক্ষক ও অভিভাবক বলেন, প্রভাবশালী ঠিকাদার ক্ষমতার অপব্যবহার করে পরীক্ষা কেন্দ্রের মাঠ সম্পূর্ন দখল করে তার ঠিকাদারি ব্যবসা চালিয়ে যা”েছন। অধ্যক্ষকে এ সমস্যার কথা জানালেও তিনি এতে কোন কর্ণপাত করেননি।
একাধিক পরীক্ষার্থীরা জানান, নির্মাণসামগ্রী পরিবহনের জন্য ব্যবহৃত ট্রলি গাড়ীর শব্দে কিছু শোনা যায় না। পরীক্ষা শুরু হওয়ার ৩০ মিনিট পূর্বে পরিবহনের কাজ বন্ধ করা হয়। ধুলাবালিতে পরীক্ষা কেন্দ্রের চারদিক একাকার হয়ে যায়। এ কারনে পরীক্ষা শুরুর আগে কেন্দ্রে এসে স্বা”ছন্দ্যে চলাফেরাও করা যায় না। পরীক্ষার্থীরা আরো বলেন, মাঠে রাখা এই পাথর ও বালুতে যে কোনো সময় পরীক্ষার্থীরা বড় ধরনের কোন দূর্ঘটনার স্বীকার হতে পারে। তাই দ্রুত এগুলো কেন্দ্রের মাঠ থেকে সরিয়ে নেওয়া দরকার।
এ বিষয়ে ঠিকাদার বাদশা মুঠোফোনে বলেন, তালতলীর বিভিন্ন এলাকায় তার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের রাস্তার কিছু কাজ চলতেছে। সে জন্য বালু ও পাথরগুলো পরীক্ষা কেন্দ্রের মাঠে রাখা হয়েছে। দুই- এক দিনের মধ্যেই এগুলো সরিয়ে নেওয়া হবে।
এ বিষয়ে মাদরাসার অধ্যক্ষ ও কেন্দ্র সচিব হারুন অর রশিদ বলেন, বিষয়টির জন্য আমি দুঃখিত। ঠিকাদার বাদশাকে গত বছর ডিসেম্বর মাসের মধ্যে মাদরাসার মাঠে রাখা তার বালু ও পাথরগুলো সরিয়ে নেওয়ার জন্য বলা হলেও তিনি তা নেয়নি। এ কারনে কেন্দ্রে আসা পরীক্ষার্থীদের কিছুটা সমস্যা হ”েছ।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) মোঃ সেলিম মিয়া মুঠোফোনে বলেন, এই বালু ও পাথরের জন্য আমি দাখিল পরীক্ষার প্রথম দিন (সোমবার) কেন্দ্র পরিদর্শনে যেতে পারিনি। এ বিষয়ে আমি ব্যব¯’া নেব।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com