বুধবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:৪৩ অপরাহ্ন

 বঙ্গবন্ধুর আদর্শে ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় তরুন সমাজের আইকন – তান কাশেম ভুইয়া (দ্বীপ)

 বঙ্গবন্ধুর আদর্শে ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় তরুন সমাজের আইকন – তান কাশেম ভুইয়া (দ্বীপ)

 মো: মামুনুর রহমান খান: আগামী বছরের শুরুর দিকে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন। এই নির্বাচন নিয়ে ইতিমধ্যেই ঢাকার বিভিন্ন ওয়ার্ডগুলোতে এলাকাবাসীর মধ্যে আলোচনা-পর্যালোচনা শুরু হয়ে গেছে। সিটি কর্পোরেশন দক্ষিণ ৪ নং ওয়ার্ড ঢাকা শহরে একটি বৃহৎ এবং অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ওয়ার্ড। অন্যান্য এলাকার মত এই ওয়ার্ডেও আগামী নির্বাচন নিয়ে এবং আগামী দিনের কাউন্সিলর কে হবেন এ নিয়ে আলোচনা চলছে সর্বত্র। এলাকাবাসীর আলোচনায় পর্যালোচনায় কয়েকটি নাম আলোচিত হচ্ছে, তবে সবচেয়ে বেশি আলোচিত হচ্ছে তান কাশেম ভূঁইয়া (দ্বীপ) এর নাম। তিনি এলাকার বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও সম্মানিত পরিবারের সন্তান। এলাকাবাসীর কাছে তিনি একজন সহজ সরল ও নিরহংকারী মানুষ হিসেবে পরিচিত। তিনি ধনী-গরিব সবার সাথে অত্যন্ত সদালাপী এছাড়াও বিভিন্ন ধর্মীয় ও সামাজিক ও সামাজিক কর্মকান্ডে জড়িত। এলাকায় তার পরিবার আওয়ামী লীগের রাজনীতি এবং সমাজসেবায় অত্যন্ত সুপরিচিত ও প্রতিষ্ঠিত বিধায় আগামী নির্বাচনে তান কাশেম ভূঁইয়া (দ্বীপ)এর নামই উচ্চারিত হচ্ছে সবচেয়ে বেশি। সাংবাদিকদের সাথে তিনি বলেন আমার প্রয়াত বাবা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাসেম রিজভি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক এবং বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ রাজনৈতিক সহচর ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের পর সর্বপ্রথম বঙ্গবন্ধুর উপস্থিতিতে মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে অস্ত্র সমর্পণ করেছিলেন। তিনিও তার বাবার মত এলাকার জনগণের সেবা করতে চান। তার বাবা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে বিচ্যুত হননি। তদ্রুপ বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী হয়ে আমি বাবার হাত ধরেই আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে আসি। বাবা সবসময় চাইতেন এলাকার মানুষ যেন সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে ওঠে। বাবার সূত্র ধরেই আমিও এলাকার অনেক সামাজিক কর্মকাণ্ডের সাথে সম্পৃক্ত। তিনি বলেন এমপি মহোদয় ও মেয়র মহোদয়ের সাথে সমন্বয় করে কি করে এলাকার উন্নয়ন ও রাস্তা প্রশস্ত করা যায় সেই চেষ্টাই করবো। বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে জনগণের সেবা করতে চান তিনি। এছাড়াও তিনি বলেন দুর্নীতির ঊর্ধ্বে থেকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল বাংলাদেশের অভাবনীয় উন্নয়নে আমৃত্যু কাজ করতে চান। এবং বলেন এলাকার রাস্তাঘাট উন্নয়ন স্থায়ী জলাবদ্ধতা মাদকমুক্ত সমাজ গঠন, জঙ্গিবাদ নির্মুল, পরিকল্পিত আবাসন, শিক্ষাবান্ধব পরিবেশ, পরিচ্ছন্ন আধুনিক ওয়ার্ড গঠনে অপরিসীম ভাবে ভূমিকা রাখবেন। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় তান কাশেম ভূঁইয়া দ্বীপ একজন ক্রীড়ানুরাগী। বাসাবো, কদমতলা সংসদসহ স্থানীয় যাবতীয় ক্রীড়াবিষয়ক কার্যকলাপের পৃষ্ঠপোষক। তাছাড়া তিনি শিক্ষানুরাগী। দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের কে বিনা খরচে কোচিং এ অধ্যায়নের সুযোগ করে দিয়ে তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ গড়ার অবদান রাখেন। ২০০২ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর তখনকার সময়ে ছাত্রলীগ করায় বিভিন্ন হুমকির মুখে পড়ে দেশ ত্যাগ করে কিছু সময় লন্ডনে অবস্থান করতে বাধ্য হন তিনি। ২০০৬ সালে তিনি এসিসিএ ( Association of chartered certified accountent) সম্পন্ন করে দেশে ফিরে আসেন। তৎকালীন সময়ের বিএনপির এর সন্ত্রাসীদের দ্বারা তার পরিবার চাঁদাবাজি ও প্রায় এগারো বার প্রাণঘাতী হামলারও নিষ্ঠুর শিকার হয়েছিলেন। সাংবাদিকদের কাছে তান কাশেম ভূঁইয়া বলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করি। চুয়াল্লিশ বছর আগে অন ১৯৭৫ সালের ১৫ ই আগস্ট সেনাবাহিনীর বিপথগামী একদল ঘাতকের হাতে তার সপরিবারে নিশংস হত্যাকাণ্ড হয়েছিল যা হলো জাতির ইতিহাসে এক কলঙ্কজনক অধ্যায়। দেশের স্থপতি ও নির্বাচিত রাষ্ট্রপ্রধানকে তার পরিবারের সদস্যসহ এমন ভয়াবহভাবে হত্যাকান্ডের ঘটনা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করে দেশ ও জাতিকে বিপথগামী করার অপচেষ্টা চালানো হয়। পরবর্তীকালে হত্যাকারীদের বিচার থেকে রেহাই দিয়ে জারি করা হয় কুখ্যাত ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ। সেই অধ্যাদেশ বাতিলের পর দেরিতে হলেও বিচার কাজ সম্পন্ন হয়েছে, কয়েক জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে অন্যান্যরা পালিয়ে বেড়াচ্ছে বিভিন্ন দেশে। একটি স্বাধীন ও গণতান্ত্রিক দেশে বছরের পর বছর এ নৃশংস হত্যাকাণ্ডের বিচারের পথ রুদ্ধ ছিল। যা আইনের শাসনের পরিপন্থী। এর পাশাপাশি বঙ্গবন্ধুর অবদান মুছে ফেলার প্রক্রিয়াও চালানো হয়েছে নানাভাবে। সামনে নির্বাচন কে কেন্দ্র করে তান কাশেম ভূঁইয়া দ্বীপ সাংবাদিকদের আরও বলেন আমার রাজনৈতিক প্রতিশ্রুতি হলো ৪ নং ওয়ার্ডের আধুনিকায়ন, সবুজবাগে মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য স্মৃতিস্তম্ভ তৈরিকরণ, জলাবদ্ধতা দূরীকরণ, আধুনিকায়নের মাধ্যমে সকল ঝুলন্ত তার মাটির নিচ দিয়ে প্রতিস্থাপনের অঙ্গীকার, চাঁদাবাজি ও মাদকের বিরুদ্ধে অটল থাকার প্রতিশ্রুতি। তিনি বলেন জননেত্রী শেখ হাসিনা যদি আমাকে কাউন্সিলর হিসেবে মনোনয়ন দেন তাহলে আমি এলাকার সর্বস্তরের জনগনের সহযোগিতা নিয়ে এই নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করবো ইনশাআল্লাহ।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com