সোমবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:৫৯ অপরাহ্ন

লক্ষ্মীপুরে ইউনিয়ন আ.লীগের সিলেকশন নয় ইলেকশন চান নেতাকর্মীরা

লক্ষ্মীপুরে ইউনিয়ন আ.লীগের সিলেকশন নয় ইলেকশন চান নেতাকর্মীরা

অ আ আবীর আকাশ,লক্ষ্মীপুর:
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলনকে সামনে রেখে জেলা উপজেলা সম্মেলন ১২ ডিসেম্বরের পূর্বে শেষ করার জন্য কেন্দ্র থেকে বলা হলেও লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলাসহ রামগঞ্জ রায়পুর কমলনগর রামগতি উপজেলার ইউনিয়ন সমূহের ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা হলেও ইউনিয়ন কমিটি গঠন করা হয়নি।
ইউনিয়ন কমিটি নিয়ে কেউ কেউ ইলেকশনের বদলে সিলেকশন করাতে নানাভাবে দৌড়ঝাঁপ করছেন। এতে তৃণমূল রাজনীতিতে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। পদ আঁকড়ে থাকা পদধারীরা ছাড়তে চান না। তৃণমূল রাজনীতির নেতা-কর্মী বিচ্ছিন্ন, নানা অনিয়মের সাথে জড়িয়ে যাওয়ার কারণে তারা ভয় পাচ্ছেন বলে সিলেকশন নিয়ে দৌড়ঝাঁপ করছেন। কারণ হলো ইলেকশন বা নির্বাচন দিলে তারা পদ বঞ্চিত হবেন। কপাল পুড়বে বলে তারা এখন আতঙ্কে রয়েছেন।
কমলনগরের চরমার্টিন ইউনিয়নের সাংবাদিকদের একটি টিম পর্যবেক্ষণ করে। সেখানে দেখা যায় ২০১২ সালের নভেম্বরের ১২ তারিখে উপজেলা সম্পাদক একেএম নুরুল আমিন স্বাক্ষরিত ও অনুমোদিত কমিটিতে ৬৫ জন  সদস্য রয়েছেন। তার মধ্যে পাঁচজন মারা গেছেন। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ১৯ উপলক্ষে সভাপতি প্রার্থী ইউসুফ আলী মিয়া ও মো: আব্বাস উদ্দিন। সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী পাঁচজনের মধ্যে আনিসুর রহমান হৃদয়, মহিউদ্দিন সোহেল, জহিরুল ইসলাম মিলন, বেলায়েত হোসেন, মকবুল আহমেদ বকুল।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কমিটির একাধিক দায়িত্বশীল ব্যক্তি জানিয়েছেন ইউনিয়ন কমিটির বর্তমান সভাপতি ও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইউসুফ আলী মিয়ার দীর্ঘ প্রবাস থেকে আওয়ামী লীগে ২০১১ সালে যোগ দিয়ে ২০১২ সালে কমিটিতে সভাপতি হন। কোন নিয়ম না মেনেই সরাসরি সভাপতি পদে সিলেকশন করা হয় তখন। দীর্ঘ আট বছর কমিটি থাকলেও কোনো সভা-সম্মেলন হয়নি। নেতাকর্মীদের সাথে কারো কোন পরিচয় হয়নি। অনেকে অনেককে চেনেও না বলে তারা জানান।
২০১২ সালের অনুমোদিত কমিটির বিভিন্ন দায়িত্বে থাকা দায়িত্বশীল নেতাকর্মীরা বলেন -আমরা নির্বাচন চাই, নির্বাচন হলে দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন হবে। যারা ভোমরা, হাইব্রিড, টক্কা রাজনীতি করেন তারা চিহ্নিত হয়ে যাবে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ জেলা উপজেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দের কাছে নির্বাচনের মাধ্যমে ইউনিয়ন কমিটি দেয়ার জোর দাবি জানিয়েছেন ত্যাগী নেতাকর্মীরা।
এই নিয়ে কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট নুরুল আমিন রাজুর সাথে কথা হলে তিনি জানান ডিসেম্বরের ৩ থেকে ১২ ডিসেম্বরের  মধ্যে উপজেলার সবকটি ইউনিয়নে নির্বাচন সম্পন্ন করা হবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন আমরা ইলেকশন করার জন্যই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি, তবে কিছু কিছু ইউনিয়নে নির্বাচন না-ও করা হতে পারে।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com