মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ০৩:৩৪ অপরাহ্ন

যুদ্ধ চাই না কিন্তু শক্তিশালী সশস্ত্র বাহিনী চাওয়ার আছে: প্রধানমন্ত্রী

যুদ্ধ চাই না কিন্তু শক্তিশালী সশস্ত্র বাহিনী চাওয়ার আছে: প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীকে এমন মানে উন্নীত করা প্রয়োজন যা একটি স্বাধীন দেশের সাথে মানানসই হবে।

সশস্ত্র বাহিনী দিবস ২০১৮ উপলক্ষে ঢাকা সেনানিবাসের সেনাকুঞ্জে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘আমরা কারো সাথে যুদ্ধে জড়াতে চাই না। আমরা যুদ্ধ চাই না। কিন্তু সশস্ত্র বাহিনীকে একটি স্বাধীন দেশের সাথে মেলে এমন মানদণ্ডে উন্নীত করতে হবে।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ‘হামলা হলে আমরা কাউকে ছেড়ে দেব না। শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত তাদের প্রতিরোধ করব।’

প্রতিটি বাহিনীকে আধুনিক অস্ত্র ও প্রশিক্ষণে সজ্জিত করতে বর্তমান সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানান তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, তার সরকার সশস্ত্র বাহিনীর জন্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের করা প্রতিরক্ষা নীতিমালা ১৯৭৪-এর ভিত্তিতে ফোর্সেস গোল ২০৩০ প্রণয়ন করেছে।

বাংলাদেশ মানবিক কারণে ১১ লাখ নির্যাতিত রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, সরকার আলোচনার মাধ্যমে এই সংকট সমাধানে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। ‘মিয়ানমার ইতিমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে যে তারা বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেবে।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, অনেক উন্নত দেশ উদ্বাস্তুদের আশ্রয় দেয়ার ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়লেও বাংলাদেশ রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার ক্ষেত্রে সব ধরনের ব্যবস্থা সম্পন্ন করতে পেরেছে।

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় ও খাবার নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সহযোগিতার জন্য তিনি দেশের জনগণ, বিশেষ করে কক্সবাজারের স্থানীয় বাসিন্দা, প্রশাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সশস্ত্র বাহিনীকে ধন্যবাদ জানান।

প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তাবিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিকী, সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ, নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল নিজামউদ্দিন আহমদ ও বিমান বাহিনী প্রধান এয়ার চিফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী সেনা কর্মকর্তা ও তাদের পরিবারের সদস্য এবং কূটনীতিক ও অন্য আমন্ত্রিত অতিথিদের সাথে কুশল বিনিময় করেন।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com