রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৫:৫৭ পূর্বাহ্ন

চট্টগ্রামে ১৬ আসনে জন্য ৩৭ হাজার ৪৪০ জন কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন।

চট্টগ্রামে ১৬ আসনে জন্য ৩৭ হাজার ৪৪০ জন কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন।

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রামে ১৬ আসনে ভোট গ্রহণের জন্য ৩৭ হাজার ৪৪০ জন কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন। যাচাই-বাছাই শেষে তিন ক্যাটাগরিতে এ প্যানেল চূড়ান্ত করেছে নির্বাচন কমিশন।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, এবার নগরীর ৬টিসহ চট্টগ্রামের ১৬টি আসনে ১ হাজার ৮৯৯টি ভোটকেন্দ্রে ১০ হাজার ৬৮৩টি বুথে (কক্ষ) এবং  তিন ক্যাটাগরিতে দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা ভোট গ্রহণের দায়িত্ব পালন করবেন।

এর মধ্যে প্রিসাইডিং অফিসার ২০৮৯ জন, সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার ১১ হাজার ৭৫২ জন এবং পোলিং অফিসার ২৩ হাজার ৫৯৯ জন। মোট ১৮৯৯টি ভোটকেন্দ্রের ১০ হাজার ৬৮৩টি বুথে (ভোট কক্ষ) সুষ্ঠু ভোট গ্রহণে দায়িত্ব পালন করবেন তারা।

জানা গেছে, থানা ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তারা চট্টগ্রামের বিভিন্ন সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক-বীমা অফিসে কর্মরত কর্মকর্তাদের যে তালিকা জেলা নির্বাচন অফিসে পাঠিয়েছিলেন সেই তালিকা থেকে যাচাই-বাছাই করে চূড়ান্ত তালিকা নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান বলেন, ‘একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রামের ১৬ সংসদীয় আসনের ১ হাজার ৮৯৯টি ভোটকেন্দ্রে দায়িত্ব পালনের জন্য প্যানেল তৈরির কাজ চলমান রয়েছে। শিগগিরই ভোট গ্রহণের জন্য এ প্যানেল তৈরির কাজ শেষ হবে। ইতিমধ্যে প্রিসাইডিং অফিসার, সহকারী প্রিসাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসার এই তিন ক্যাটাগরিতে ৩৭ হাজার ৪৪০ জন কর্মকর্তার তালিকা করা হয়েছে।’

তিনি জানান, ভোটার তালিকা অনুযায়ী এবার চট্টগ্রামে (চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলায়) মোট ভোটার সংখ্যা ৫৬ লাখ ৩৯ হাজার ৩৬৩ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২৯ লাখ ১৪ হাজার ৪২১ জন এবং নারী ভোটার ২৭ লাখ ২৪ হাজার ৯৪২ জন।

মুনীর হোসাইন বলেন, ‘আমরা চূড়ান্ত তালিকা কমিশনে পাঠিয়েছি। সেখান থেকে শেষ পর্যায়ে কিছু বাদও যেতে পারে।

এর আগে ১৭ অক্টোবর ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা নিয়োগের জন্য চট্টগ্রামের সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত, সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত সকল প্রতিষ্ঠান, ব্যাংক-বীমা প্রতিষ্ঠান ও অন্যান্য সংস্থার প্রধানদের কাছে চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত চিঠি পাঠানো হয়।

চিঠি পাওয়ার পর প্রতিষ্ঠান প্রধানরা জেলা নির্বাচন অফিসে সম্মতি জানিয়ে ভোট গ্রহণ কর্মকর্তা নিয়োগের জন্য নিজ নিজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তালিকা প্রেরণ করেন। এরপর থেকেই জেলা নির্বাচন অফিস যাচাই-বাছাই করে চূড়ান্ত প্যানেল তৈরির কাজ করছে।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com