শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৪:৫৭ পূর্বাহ্ন

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়াটি দীর্ঘ ও কঠিন পথ: সিঙ্গাপুর পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়াটি দীর্ঘ ও কঠিন পথ: সিঙ্গাপুর পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণান বলেছেন, যদিও বাংলাদেশ ও মায়ানমার রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসন শুরুর বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করছে তবে এর সমাধান প্রক্রিয়া অনেকটা দীর্ঘ ও কঠিন।

রবিবার কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প সফর শেষে তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের বর্তমান পরিস্থিতি টেকসই নয়। প্রত্যাবাসনের পথ অনেক দীর্ঘ ও কঠিন। অনেক বিষয়ে আগেই নিশ্চিত হতে হবে, যাতে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়াটি স্বেচ্ছায়, নিরাপদ, নিরাপত্তা এবং মর্যাদাপূর্ণ হয়।

মন্ত্রী বালাকৃষ্ণান কক্সবাজারের কুতুপালং-বালুখালীর সম্প্রসারিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প এবং সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করেন। যেখানে বিশাল এলাকাজুড়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্প রয়েছে। এসময় তার সাথে ছিলেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী।

সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. ভিভিয়ান বালাকৃষ্ণান সোমবার মায়ানমার সফর করার কথা রয়েছে। এই সফরে তিনি রোহিঙ্গা প্রত্যাবসান ইস্যুতে দেশটির শীর্ষ কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করবেন।

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমি যে সব উদ্বাস্তুদের সাথে কথা বলেছি, তারা সবাই মায়ানমারে ফিরে যেতে চায়। সন্তানদের ভবিষ্যত নিয়ে তারা তাদের উদ্বেগের কথা জানায়।

এদিকে সিঙ্গাপুরের মন্ত্রী তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে লিখেন, বাংলাদেশ সরকার এবং দেশটির জনগণ ‘সত্যিই চমৎকার’। নানা সীমাবদ্ধতা এবং খুবই প্রতিকুল অবস্থা সত্ত্বেও প্রায় ১০ লাখ রোহিঙ্গা উদ্বাস্তুকে মানবিক সহায়তা দিয়েছেন তারা।

আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলিও সক্রিয়ভাবে প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করছে, বলেন তিনি। মন্ত্রী বলেন, সিঙ্গাপুরও আর্থিক এবং মানবিক সহায়তা দিচ্ছে।

রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের আগে সিঙ্গাপুরের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রবিবার প্রথমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে তার কার্যালয়ে সাক্ষাৎ করেন। এসময় তিনি বাংলাদেশ ও সিঙ্গাপুরের মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সুসম্পর্কের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের অগ্রগতির ভুঁয়সি প্রশংসা করেন।

তিনি বলেন, আমি আশা করি আমাদের দ্বিপাক্ষিক সহযোগিতা আরও শক্তিশালী হবে।

এদিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলীর সাথে বৈঠকে সিঙ্গাপুরের মন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে দীর্ঘ মেয়াদি সমাধান খুঁজতে বাংলাদেশ ও মায়ানমারকে সহযোগিতা করতে আসিয়ান প্রস্তুত রয়েছে।

দশটি রাষ্ট্র নিয়ে গঠিত আসিয়ানভুক্ত দেশগুলো হলো- ব্রুনাই, কম্বোডিয়া, ইন্দোনেশিয়া, লাওশ, মালয়েশিয়া, মায়ানমার, পিলিপাইন, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড ও ভিয়েতনাম।(ইউএনবি)

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com