রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০২:৪৪ অপরাহ্ন

সেবক হয়ে যারা জনগণকে হামলা-মামলা দিয়ে কষ্ট দিচ্ছে তাদের বিচার হবে :ড. কামাল হোসেন।

সেবক হয়ে যারা জনগণকে হামলা-মামলা দিয়ে কষ্ট দিচ্ছে তাদের বিচার হবে :ড. কামাল হোসেন।

জনগণের সেবক হয়ে সরকারের কাজ করার কথা থাকলেও, তারা মালিকের মতো আচরণ করছে বলে অভিযোগ করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন। তিনি বলেছেন, সেবক হয়ে যারা জনগণকে হামলা-মামলা দিয়ে কষ্ট দিচ্ছে তাদের বিচার হবে।

আজ শনিবার বিকালে চট্টগ্রাম নগরীর কাজীর দেউড়ির নূর আহমদ সড়কে বিএনপি কার্যালয়ের সামনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আয়োজিত সমাবেশে ড. কামাল হোসেন এসব কথা বলেন।

সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘এদেশের মালিক জনগণ, আর যারা দেশ শাসন করছেন তারা সেবক। ক্ষমতায় গিয়ে সরকার প্রতিনিয়ত, সকাল বিকেল শপথ ভাঙছে। সরকার দেশের সেবক হয়ে মালিকের মতো আচরণ করছে। একদিন না একদিন এর বিচার করতে হবে। সরকার সকাল, বিকাল ও সন্ধ্যায় দেশের সংবিধান লঙ্ঘন করছে, শপথ ভঙ্গ করছে। তাদের বিচার হবে। শাস্তি দেওয়া হবে।’

১৪ শর্তে সিলেটে সমাবেশ হওয়ার পর চট্টগ্রামে সমাবেশের অনুমতি চেয়েছিল জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। পরে লালদীঘি ময়দানে সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে, ২৫ শর্তে নাসিমন ভবন বিএনপি দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের অনুমতি দেয় চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশ (সিএমপি) ।

 

চট্টগ্রাম নগরীর কাজীর দেউরিতে নাসিমন ভবনের সামনে আয়োজিত সমাবেশে হাতে হাত ধরে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। 

লালদীঘিতে অনুমতি না পাওয়ার বিষয়ে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘চট্টগ্রামের লালদীঘি ময়দানে সমাবেশের জন্য কেন অনুমতি দেওয়া হয়নি, তার কৈফিয়ত আদায় করতে হবে। খুঁজে বের করা হবে কারা কেন এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’

যুদ্ধাপরাধের দায়ে কিছু লোককে বিচারের আওতায় আনা হলেও অনেকে বিচারের বাইরে রয়ে গেছে বলেও জানান ড. কামাল হোসেন। এ ছাড়া সাত দফার ন্যূনতম না মানা হলে ছাড় দেওয়া হবে না বলেও তিনি জানান।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনের পর আজ চট্টগ্রামে দ্বিতীয়বারের মতো সমাবেশ করে দলটি। এরপর রাজশাহী ও ঢাকায়ও সমাবেশ করার কথা রয়েছে তাদের।

আজকের সমাবেশে বক্তব্য দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ ও মির্জা আব্বাস, জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, আওয়ামী লীগের সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক, ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মো. মনসুর প্রমুখ।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com