বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৪১ অপরাহ্ন

ছয়টি কোম্পানির ২৩ প্রকারের ঝুঁকিপূর্ণ ঔষধ প্রত্যাহারের নির্দেশ

ছয়টি কোম্পানির ২৩ প্রকারের ঝুঁকিপূর্ণ ঔষধ প্রত্যাহারের নির্দেশ

বাংলাদেশ ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর দেশের ছয়টি ফার্মাসিউটিক্যালস কোম্পানির উৎপাদিত ২৩ প্রকারের ঝুঁকিপূর্ণ ঔষধ প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছে। কারণ হিসেবে চীন থেকে আমদানিকৃত কাঁচামালে উৎপাদিত ২৩ প্রকারের ওষুধ ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ হিসেবে চিহ্নত করেছে  ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

কোম্পানিগুলো হলো- মেসার্স ইনসেপটা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মেসার্স পপুলার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মেসার্স দি একমি ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড, মেসার্স ড্রাগ ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড, মেসার্স রেনাটা ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড ও মেসার্স হেলথকেয়ার ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড।

১৪ অক্টোবর ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) রুহুল আমিন স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ নির্দেশনা দেয়া হয়। চিঠিতে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের আগামী সাত দিনের মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ ওষুধগুলো কোনো ফার্মেসিতে পাওয়া গেলে তা সিলগালা করে পরিমাণ উল্লেখসহ সংশ্লিষ্ট উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান/নিকটস্থ ডিস্ট্রিবিউশন চ্যানেল/প্রতিনিধিকে ফার্মেসি থেকে তা সংগ্রহের নির্দেশ প্রদানের জন্য বলা হয়েছে।

যে ওষুধগুলো প্রত্যাহারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে-

ইনসেপটা কোম্পানির উৎপাদিত আমলোসারটিন (৫/৮০ ট্যাবলেট) নামক ওষুধটির বিভিন্ন ব্যাচের ১৮০৬২ থেকে ১৮০৭৫ ওষুধ প্রত্যাহারের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

দি একমি কোম্পানি উৎপাদিত সব ব্যাচের ভালটিন ৮০ এমজি ট্যাবলেট, ভালটিন ১৬০ এমজি ট্যাবলেট, কো-ভালটিন ৫/৮০ এমজি ট্যাবলেট, কো-ভালটিন ৫/১৬০ এমজি ট্যাবলেট।

পপুলারের বিভিন্ন ব্যাচে উৎপাদিত এমলোভাস ভিএস ৫/৮০ ট্যাবলেট, এমলোভাস ভিএস ৫/১৬০ ট্যাবলেট, এমলোভাস ভিএস ১০/১৬০ ট্যাবলেট, ভালভাস এইচসিটি ১০/১৬০/২৫ ট্যাবলেট।

ড্রাগ ইন্টারন্যাশনালের বিভিন্ন ব্যাচে উৎপাদিত এভি-৫ ট্যাবলেট, এভি-১০ ট্যাবলেট, এভি-৫/৮০ ট্যাবলেট, কার্ডিভাল ৮০ ট্যাবলেট।

রেনেটা কোম্পানির ভালডিপিন এফসি ৮০ এমজি ও ১৬০ এমজি ট্যাবলেট, ভালজিডি এফসি (১৬০ গ্রাম+১২ দশমিক ৫ মিলিগ্রাম ট্যাবলেট), ভালজিডি এফ সি (৮০ গ্রাম+ ১২ দশমিক ৫ মিলিগ্রাম ট্যাবলেট)।

এ ছাড়া হেলথ কেয়ারের ডিসিস ৮০ মিলিগ্রাম (এফসি) ট্যাবলেট, ডিসিস ১৬০ মিলিগ্রাম (এফসি) ট্যাবলেট ও ডিসিস প্লাস ৮০/১২ দশমিক ৫ মিলিগ্রাম (এফসি) ট্যাবলেট প্রত্যাহারের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এ সম্পর্কে রুহুল আমিন বলেন, ‘চীনের জোহাই রোনদো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড নামক প্রতিষ্ঠানে উৎপাদিত ভালসারটান নামক সক্রিয় কাঁচামালে ইমপিউরিটি হিসেবে সম্ভাব্য কার্সিনোজেনিক এজেন্ট এনডিএমএ (এন-নাইট্রোসোডিমেথিলামাইন) শনাক্ত হওয়ায় ওই কাঁচামালে উৎপাদিত ওষুধ বাজার হতে এএমএ, ইউএসএফডিএসহ ২৩টি দেশ প্রত্যাহারের নির্দেশ দেয়। এ কারণে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরও একই কাঁচামালে উৎপাদিত ওষুধ বাজার থেকে প্রত্যাহারের নির্দেশনা দেয়

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com