বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০১:২৫ অপরাহ্ন

গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরী নির্ধারনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় স্মারকলিপি পেশ

গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরী নির্ধারনে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় স্মারকলিপি পেশ

গত ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য নি¤œতম মজুরী ঘোষনা করা হয়েছে মাত্র ৮,০০০/- টাকা। এটা অত্যন্ত অপ্রতুল, তাই ঘোষিত এ মজুরী পুনঃবিবেচনা করার দাবীতে আজ ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, মাননীয় প্রধানতন্ত্রীর নিকট প্রদত্ত এক স্মারকলিপিতে তারা এই দাবী জানান। স্মারকলিপি প্রদানের পূর্বে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে একটি শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে শতাধিক শ্রমিক অংশ নেয়।

ফেডারেশনের সভাপতি জনাব আমিরুল হক আমিন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ঃ ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মিসেস আরিফা আক্তার, কেন্দ্রীয় নেতা মিস সাফিয়া পারভীন, মোঃ ফারুক খান, মোঃ রফিকুল ইসলাম রফিক, কবির হোসেন, মোঃ ফরিদুল ইসলাম এবং নাসিমা আক্তার প্রমুখ ।
সমাবেশে সংহতি বক্তব্য রাখেন, ইন্ডাষ্ট্রিঅল বাংলাদেশ কাউন্সিলের কেন্দ্রীয় নেতা জনাব রুহুল আমিন, বাংলাদেশের ওযার্কার্স পার্টি, ঢাকা মহানগর এর সাধারণ সম্পাদক কমরেড কিশোর রায় এবং বাংলাদেশ যুবমৈত্রীর সভাপতি জনাব সাব্বাহ আলী খান কলিন্স।
বক্তারা বলেন, গত ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য নি¤œতম মজুরী ঘোষনা করা হয়েছে মাত্র ৮,০০০/- টাকা। এটা অত্যন্ত অপ্রতুল, তাই ঘোষিত এ মজুরী পুনঃবিবেচনা করা দরকার। ৮,০০০/- টাকা ৭ম গ্রেডের শ্রমিকদের জন্য ঘোষানা করা হয়েছে – যা মুলতঃ হেলপারদের জন্য এবং এই হেলপাররা হচ্ছে মোট শ্রমিকের মাত্র ৩% থেকে ৫%। ৩% থেকে ৫% শ্রমিকদের জন্য মজুরী ঘোষনা করা হলেও অপারেটর সহ সকল শ্রমিকের মজুরী এখনও ঘোষনা করা হয় নাই যা অত্যন্ত জরুরী। ঘোষিত ৮,০০০/- টাকা মজুরীতে মুল মজুরী ধরা হয়েছে মাত্র ৪,১০০/- টাকা অর্থাৎ ৫১% ।এটি অত্যন্ত চাতুরীপূর্ণ। গার্মেন্টস শ্রমিকদের ওভারটাইম ভাতা, ঈদ বোনাস, ক্ষতিপুরনের টাকা, সার্ভিস বেনিফিট, অবসরকালীন সুবিধা সবকিছুই নির্ধারিত হয় মুল মজুরীকে ভিত্তি করে। তাই মুল মজুরী কম থাকলে সকল ক্ষেত্রে শ্রমিকদেরকে বঞ্চিত করা হবে। এজন্য মুল মজুরী ৫১% না করে ৭০% করা দরকার।
বাৎষরিক মজুরী বৃদ্ধির কথা উল্লেখ করা হয় নাই। শ্রমিকদের বাৎষরিক ১০% মজুরী বৃদ্ধির সুপারিশ মজুরী বোর্ড থেকে আসা প্রয়োজন।
কর্মসূচী থেকে নি¤œলিখিত ৪ টি দাবী জানানো হয় –
১.ঘোষিত মজুরী পুনঃবিবেচনা করতে হবে

২. অবিলম্বে অপারেটর সহ সকল শ্রমিকের মজুরী ঘোষনা চাই

৩. মুলবেতন (বেসিক) ৫১% নয় –৭০% করতে হবে

৪. বাৎসরিক মজুরী বৃদ্ধি ১০% করতে হবে
অবিলম্বে ঘোষিত মজুরী পুনঃবিবেচনা, অপারেটর সহ সকল শ্রমিকের মজুরী ঘোষনা, মুলবেতন ৫১% নয় –৭০% এবং বাৎসরিক মজুরী বৃদ্ধি ১০% অতি দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট আবেদন জানান।
সমাবেশ শেষে মিছিল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দিকে গেলে হাইকোর্টের মোড়ে পুলিশ বাধা দেয়। ফেডাশেনের সাধারণ সম্পাদক মিসেস আরিফা আক্তার, মিস শাফিয়া পারভীন, মোঃ রফিকুল ইসলাম রফিক এবং মোঃ ফরিদুল ইসলাম সহ ৪ জন প্রতিনিধি স্মারকলিপি পেশ করেন।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com