রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১১:১৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
সিঙ্গাপুর প্রবাসী বাংলাদেশীদের মূল্যবান সামগ্রী প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাৎকারী প্রতারক গ্রেফতার

সিঙ্গাপুর প্রবাসী বাংলাদেশীদের মূল্যবান সামগ্রী প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাৎকারী প্রতারক গ্রেফতার

সিঙ্গাপুর প্রবাসী বাংলাদেশীদের মূল্যবান সামগ্রী প্রতারণার মাধ্যমে আত্মসাৎকারী প্রতারককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত ব্যক্তির নাম-মোঃ নাছির উদ্দিন ওরফে পারভেজ (৩২)। গ্রেফতারের সময় তার হেফাজত থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত তার নিজ নামীয় ২টি বাংলাদেশী পাসপোর্ট, ১টি স্বর্ণের নেকলেস, ৪টি স্বর্ণের চেইন, ২টি স্বর্ণের নুপুর ও ২টি স্বর্ণের ব্রেসলেটসহ অন্যান্য মালামাল উদ্ধার করা হয়।

০৪ সেপ্টেম্বর’১৮ বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে তুরাগ থানার কামারপাড়া নিশাত নগর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ঢাকা মেট্রোর একটি বিশেষ টিম।

পিবিআই সূত্রে জানা যায়, মোঃ সাগর, বাড়ি মুন্সিগঞ্জ পিবিআই ঢাকা মেট্রো অফিসে এসে অভিযোগ করেন যে, তার ভগ্নিপতি মোঃ নাসির সিঙ্গাপুরে থাকেন। সিঙ্গাপুরে থাকাবস্থায় পারভেজের সাথে পরিচয় হয়। পারভেজ কিছুদিন পর নাসিরকে বলে সে বাংলাদেশে যাবে।  নাসির গত ২৯ আগস্ট, ২০১৮ পারভেজকে কিছু স্বর্ণালঙ্কার ও ২ টি আইফোন ১০ এক্স মোবাইলসহ মোট  ৫ লক্ষ ৬০ হাজার টাকার মালামাল বাংলাদেশে থাকা সাগরের নিকট পৌঁছে দেওয়ার জন্য বুঝিয়ে দেয়। উক্ত মালামাল পৌঁছে দেয়ার জন্য পারভেজকে নগদ ৯ হাজার টাকা প্রদান করা হয়। বাংলাদেশে বিমানবন্দরে অবতরণের পর পারভেজ সাগরকে ফোন করে বিমানবন্দর গোলচত্বরে আসতে বলে। একটি কাগজে মোড়ানো অবস্থায় উক্ত মালামালগুলো সাগরের হাতে দেয় পারভেজ। সাগর প্যাকেট খুলে দেখে যে তার ভগ্নিপতির পাঠানো স্বর্ণালঙ্কারের সাথে মিল নেই। তখন সাগর পারভেজকে জিজ্ঞাসা করলে সে জানায় বিমানবন্দরের ভেতরে কাস্টমস রেখে দিছে। এই বলে সাগরের হাত থেকে উক্ত প্যাকেট নিয়ে পারভেজ প্রাইভেটকারে করে পালিয়ে যায়।

পিবিআই সূত্রে আরো জানা যায়, গ্রেফতারকৃত পারভেজ নিজের প্রকৃত ঠিকানা পরিবর্তন করে মিথ্যা তথ্য/ঠিকানা দিয়ে তার নিজ নামে দুটি পাসপোর্ট তৈরি করে। এরপর সিঙ্গাপুর আসা-যাওয়ার মাধ্যমে বিভিন্ন বাংলাদেশী প্রবাসীদের কাছ থেকে স্বর্ণালঙ্কার ও বিভিন্ন মূল্যবান মালামাল নিয়ে এসে প্রবাসীদের আত্মীয়-স্বজনদের নিকট পৌঁছে দেবে বলে মালামাল ও সামগ্রী বহনের খরচ বাবদ টাকা গ্রহণ করে। কিন্তু বাংলাদেশে আসার পর উক্ত মালামাল প্রবাসীদের আত্মীয় স্বজনদের প্রদান না করে নিজেই আত্মসাৎ করে এবং বিভিন্ন ছদ্মবেশ ধারণ করে আত্মগোপন করে থাকত।

এ সংক্রান্তে তার বিরুদ্ধে বিমানবন্দর থানায় একটি মামলা রুজু হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com