শনিবার, ৩১ অক্টোবর ২০২০, ০৩:১৬ পূর্বাহ্ন

 আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশ কঠোর অবস্থানে থাকবে: মো আছাদুজ্জামান মিয়া

 আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশ কঠোর অবস্থানে থাকবে: মো আছাদুজ্জামান মিয়া

আইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশ কঠোর অবস্থানে থাকবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মো আছাদুজ্জামান মিয়া।
তিনি জানান সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে ট্রাফিক সপ্তাহ আরও তিন দিন বাড়িয়ে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত করা হয়েছে।
আজ দুপুরে রাজধানীর মিন্টোরোডে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি একথা জানান।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘সাত দিনের ট্রাফিক সপ্তাহ আজ শেষ হচ্ছে। তবে ট্রাফিক সপ্তাহ আরও তিন দিন বাড়িয়ে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত করা হয়েছে। ট্রাফিক সপ্তাহে আইনের প্রয়োগ ও শৃঙ্খলা ফেরানোর ক্ষেত্রে যথেষ্ট অগ্রগতি হয়েছে বলে উল্ল্খে করে তিনি বলেন, আইন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। আইন অমান্যকারী যেই হোক না কেন তাকে কোনো ছাড় দেয়া হবে না বলেও তিনি হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন। সবার প্রতি সমান আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে প্রধানমন্ত্রীরও কঠোর নির্দেশনা আছে বলে তিনি জানান।
ডিএমপি কমিশনার বলেন, সড়কে বেপরোয়া গতিতে গাড়ি চালানো, যেখানে সেখানে দাঁড় করিয়ে যাত্রী তোলা এসবের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।
তিনি জানান, ট্রাফিক আইন না মানায় গত ছয় দিনে ৫২ হাজার ৪১৭টি মামলা দেয়া হয়েছে। এছাড়া ১১ হাজার ৪শ ৭২জন ড্রাইভারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
ফিটনেস পরীক্ষা করে ৫ হাজার ৫শ৭২টি গাড়ি ডাম্পিং করা হয়েছে। জরিমানা আদায় করা হয়েছে প্রায় ৩ কোটি টাকারও বেশি।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় সাংবাদিকদের ওপর হামলাকারীদের চিহ্নিত করার কাজ চলছে। তিনি সাংবাদিকদের ওপর এ হামলার বিষয়টি দু:খজনক উল্লেখ করে বলেন, ‘হামলার শিকার সাংবাদিকেরা চাইলে মামলা করতে পারবেন। অভিযোগ পেলে সাংবাদিক নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’
গত দুই বছরের পরিসংখ্যান তুলে ধরে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, এর আগে হাইড্রোলিক হর্ণের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা অপ্রতুল ছিল। গত দুই বছরে হাইড্রোলিক হর্ণ ব্যবহারকারীদের ক্ষেত্রে ৪৪ হাজার ৪৮৫টি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া উল্টো পথে গাড়ি চালানোর ঘটনায় ৪৪ হাজার ১৬১টি যানবাহন ও চালকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
ডিএমপি কমিশনার নাগরিকদের ট্রাফিক আইন মেনে চলার আহ্বান জানিয়ে বলেন, কেউ ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জেল-জরিমানা করা হবে। সড়কে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করা যাবে না। গাড়িতে বৈধ কাগজপত্র রাখতে হবে। ফিটনেসবিহীন গাড়ি পাওয়া গেলে ডাম্পিং করে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। রাজধানীসহ সারাদেশেই রুট পারমিটবিহীন গাড়ি চলতে দেয়া হবে না।
ডিএমপি’র এই শীর্ষ পুলিশ কর্মকর্তা বলেন,শিক্ষার্থী আন্দোলন ছিল প্রথম দুই দিন পর্যন্ত। পরে এই আন্দোলনে অনুপ্রবেশকারী বা দুর্বৃত্তরা ঢুকে পড়েছে। তারা রাজারবাগ পুলিশ লাইনস, কাফরুল ও মিরপুর থানা, বিজিবি গেটে হামলা করেছে। এছাড়া সাইন্স ল্যাবরেটরি পুলিশ বক্সে আগুন দিয়েছে এবং ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ অফিসে হামলা করে ভাংচুর করেছে। ৬ জন পুলিশ সদস্য শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছে।
তিনি বলেন, কোমলমতি শিক্ষার্থীরা এটি করেনি। এর সবকিছুই করেছে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ জনগণের সেবক। জনগণকে নিরাপত্তা দিতে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী সর্বদা প্রস্তুত।

Please Share This Post in Your Social Media




© All rights reserved © 2017 Asiansangbad.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com